1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : test2246679 :
  3. [email protected] : test29576900 :
  4. [email protected] : test44134420 :
রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১২:০৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কঠোর বিধি নিষেধ: দ্বিতীয় দিন চলছে গণসঙ্গীত শিল্পী ফকির আলমগীর আর নেই করোনা টিকার প্রথম ডোজ নিলেন পথের সময় সম্পাদক তৌকির রাসেল আড়াইহাজারে কোভিড-১৯ টেষ্টের নামে প্রতারণা,র‌্যাব-১১ এর অভিযানে গ্রেফতার ১ যথাযোগ্য মর্যাদায় সারাদেশে ঈদুল আজহা উদযাপিত শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে রাজধানীর কোরবানির পশুর হাট রোটারী ক্লাব অব ডান্ডি ও তিলোত্তমা নারায়ণগঞ্জ জয়েন প্রজেক্টের কোমলমতী শিশুদের মাঝে পবিত্র কোরআন শরীফ,পাঞ্জাবী-হিজাব ও টুপি প্রদান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে প্রচুর জ্ঞান আহরন করতে হবেঃ বীরমুক্তিযোদ্ধা এমএ রশিদ কোন মানুষ যেন ভ্যাকসিন থেকে বাদ না পড়ে, সেভাবে আমরা পদক্ষেপ নিয়েছি : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারায়ণগঞ্জে করোনা : ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ১৯২জন

নারায়ণগঞ্জে কঠোর লকডাউনের প্রথম দিন : সেনাবাহিনী,বিজিবি ও পুলিশের কড়া নজরদারি

টেলিগ্রাফ রিপোর্ট:
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১ জুলাই, ২০২১
  • ৪৭ বার

আজ সারা দেশে কঠোর লকডাউনের প্রথম দিন। আর এবারের লকডাউনকে কঠোর করে তুলতে সকাল থেকেই নারায়ণগঞ্জে ব্যাপক তৎপরতা শুরু করেছে জেলা প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

 

বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) সরেজমিনে দেখা গেলো নগরীর চাষাঢ়া থেকে ডিআইটি পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু সড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে চেকপোস্টে চলছে পুলিশ, বিজিবি ও সেনাবাহিনীর কড়া নজরদারি। তাদের সহযোগিতা করছে রোভার স্কাউট ও রেড ক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবী কর্মীরা।

 

সদর ইউএনও আরিফা জহুরাসহ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিভিন্ন স্থানে নজরদারি করায় শহরে সাধারণ মানুষের চলাচল একবারেই সীমিত। যে কারণে নগরী অনেকটাই ফাঁকা রয়েছে। মাস্ক ছাড়া কিংবা অপ্রয়োজনে কেউ বাইরে বের হলেও বিভিন্ন চেকপোস্টে বাধার মুখে পড়তে হচ্ছে তাদের।

 

আজ সকালে শুধু পোশাক কারখানা ও সহযোগী প্রতিষ্ঠানগুলোর শ্রমিক কর্মচারীদের নিজস্ব পরিবহনে কর্মস্থলে যোগ দিতে দেখা যায়। চাষাঢ়ার মোড়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ভ্রম্যামাণ আদালত শ্রমিকবাহী গাড়ি আটকে দিলে শ্রমিকরা সাময়িক ভোগান্তিতে পড়েন। তবে পরবর্তীতে আর কোনো শ্রমিকবাহী পরিবহনে বাধা দেয়া হয়নি।

 

এ ছাড়া রিকশা, অটোরিকশা, পণ্যপরিবহন ও রপ্তানি কাজে ব্যবহৃত পরিবহন ছাড়া অন্য কোনো যানবাহন চলাচল করছে না।

 

ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কেও দেখা গেছে একই চিত্র। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কোনো মানুষ বাইরে বের হচ্ছেন না। এ ছাড়া দোকানপাট, মার্কেট ও বিপণিকেন্দ্রগুলো বন্ধ রাখার পাশাপাশি বাস, ট্রেন ও লঞ্চসহ গণপরিবহন বন্ধ রয়েছে।

 

এদিকে কঠোর লকডাউন বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে বেলা সাড়ে ১১টায় নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে তিন প্লাটুন সেনাবাহিনী টহলে নামে। নগরীর চাষাঢ়ায় বিভিন্ন চেকপোস্ট ঘুরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কার্যক্রম পরিদর্শন করেন সেনা কর্মকর্তারা।

 

এ সময় সেনা সদস্যরা চেকপোস্ট অতিক্রম করার সময় জরুরি কাজে নিয়োজিত বিভিন্ন যানবাহনের চালক, মোটরসাইকেল আরোহী ও পণ্যবাহী পরিবহনের চালকদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন। তাদের বাইরে বের হওয়ার কারণ জানতে চান এবং তা নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত জিজ্ঞাসাবাদ চলে। সেনা টহলের পর থেকে নগরীতে ছোটখাটো যানবাহন ও মানুষের চলাচলও কমে যায়।

 

কঠোর বিধিনিষেধে শিল্প নগরীর রাস্তা ফাঁকা

 

সাত দিনের কঠোর বিধিনিষেধ শুরু হয়েছে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে। নগরীর রাস্তাগুলো অন্য দিনের তুলনায় বেশ ফাঁকা। প্রধান সড়কগুলোয় কোনো গণপরিবহন চলতে দেখা যায়নি। চাষাঢ়া, ২নং রেল গেইট, ১ নং রেল গেইট, মেট্টোহলের মোড়সহ বিভিন্ন রাস্তায় রিকশা ও ব্যক্তিগত গাড়ি চলতে দেখা গেছে। এসব রাস্তায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অবস্থান ছিল। পুলিশের গাড়িও টহল দিয়েছে।

 

চাষাঢ়া রাইফেল ক্লাবের সামনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের রাস্তায় বের হওয়া কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে দেখা গেছে। রিকশার আরোহীদের বেশি জিজ্ঞাসাবাদ করতে দেখা গেছে।

 

ফতুল্লার লামাপাড়া, রামারবাগ, শিবু মার্কেট, দুই নং রেল গেইটসহ বিভিন্ন এলাকার অলিগলিতে চায়ের দোকান ও কিছু দোকান খুলতে দেখা গেছে। তবে শপিং মল ও মার্কেট বন্ধ রয়েছে। সব সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস বন্ধ থাকায় রাস্তায় মানুষও অনেক কম।

 

শিল্পকারখানা, ব্যাংক, গণমাধ্যমসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের প্রতিষ্ঠানের যানবাহনে অথবা পরিচয়পত্র নিয়ে বের হতে দেখা গেছে। অন্যান্য দিনের তুলনায় ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে অটোরিকশা চলছে খুবই কম। তবে রিকশা ও ব্যক্তিগত গাড়ি দিয়ে কিছু মানুষ চলাচল করছে।

 

ফতুল্লা স্টেডিয়াম এলাকা থেকে ২নং রেল গেইট এসেছেন গোলাম রাব্বি নামের একজন গণমাধ্যমকর্মী। জানালেন, রিকশাভাড়া জানতে চান। রিকশাওয়ালা ১৫০ টাকা চেয়েছেন। স্বাভাবিক সময়ে এই ভাড়া থাকে ৬০ থেকে ৭০ টাকা। বৃষ্টি থাকায় চাষাঢ়া ছাড়া আসার পথে পুলিশের কোনো তল্লাশি চোখে পড়েনি।

 

সড়ক, রেল ও নৌপথে গণপরিবহনসহ সব ধরনের যন্ত্রচালিত যানবাহন বন্ধ রয়েছে। তবে, শ্রমিকদের পারাপারের জন্য কয়েকটি ট্রলার চালু রাখা হয়েছে।

 

এবার বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তার জন্য টহলে রয়েছে সেনাবাহিনী।

 

করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ন্ত্রণে সরকার এ বছর প্রথমে ৫ এপ্রিল থেকে ধাপে ধাপে বিধিনিষেধ দিয়ে আসছে। দেশব্যাপী বিধিনিষেধের পাশাপাশি এবার স্থানীয় প্রশাসন বিভিন্ন এলাকায় বিশেষ বিধিনিষেধ জারি করছে। কিন্তু করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসছে না। এমন পরিস্থিতিতে শুরু হয়েছে কঠোর বিধিনিষেধ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020 Telegraphnews24.com
Theme Dwonload From telegraphnews24.Com