1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : test2246679 :
  3. [email protected] : test25777112 :
  4. [email protected] : test29576900 :
  5. [email protected] : test34936489 :
  6. [email protected] : test44134420 :
  7. [email protected] : test46751630 :
  8. [email protected] : test8373381 :
শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কাউন্সিলর পদে খান মাসুদকে সমর্থন দিলেন বাবুপাড়া পঞ্চায়েত কমিটি নাসিক ২২নং ওয়ার্ড এর তরুণ কাউন্সিলর পদপ্রার্থী খান মাসুদকে বিজয়ী করতে ঐক্যবদ্ধ র‍্যালীবাসী শ্রমিকরা ভাল থাকলেই দেশ ভাল থাকবে : পলাশ খেলাধুলা যুব সমাজ রক্ষা করার মূল হাতিয়ার : কাউন্সিলর দুলাল প্রধান আল- আরাফাহ’ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড বন্দর থানা শাখার দুস্তদের মাঝে খাদ্য ও স্বাস্থ্য সামগ্রী বিতরণ শ্রমিক নেতা পলাশের নির্দেশনায় নন্দলালপুরে ডাইং শ্রমিকদের সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধিতে সভা করলেন পিয়াস আহম্মেদ সোহেল   “নারায়ণগঞ্জ টেলিভিশন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন”এর আত্মপ্রকাশ,সভাপতি জুয়েল,সম্পাদক সৈকত আসছে বিরাট পরিবর্তন:নির্যাতিত-ত্যাগী হবেন প্রার্থী তারেক জিয়ার নির্দেশে বঙ্গবন্ধু কন্যাকে চিরতরে শেষ করার চেষ্টা করা হয়েছিল : এড. শহীদ বাদল নাসিক ২৪ নং ওয়ার্ডে বিট পুলিশিং কমিটির মতবিনিময় অনুষ্ঠিত

এপ্রিলে মাঠে নামার ইঙ্গিত দিলেন এমপি শামীম ওসমান

টেলিগ্রাফ রিপোর্ট:
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২০ মার্চ, ২০২১
  • ২৩১ বার

নারায়ণগঞ্জ-৪(ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ একেএম শামীম ওসমান বলেছেন, আল্লাহর কাছে শুধু ধৈর্য্য চাই। কিছু কিছু জিনিস আমার সহ্য হচ্ছেনা। মার্চ মাসটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ তাই কিছু কথা বলবোনা। অনেক কিছু দেখতাছি, কিচ্ছু বলিনা,শুধু দেখি। আল্লাহ’র ঘর মসজিদে আঘাত আসলে আমাদের চুপ করে থাকলে হবেনা, জবাব দিতে হবে। কিছু আলেম প্রতিবাদ করেছে আল্লাহ তাদের কবুল করুক, আবার অনেকে চুপ করে বসে আছেন, আল্লাহ তাদের তৌফিক দিন। বাগে জান্নাত মসজিদ আমার বাড়ির সামনে, ছোটবেলায় আমি সেই মাঠে খেলছি। এটা আগে কবরস্থান ছিল। আমি দেখছি সেইখানকার পর্চায় লেখা আছে একটা মসজিদ,একটা মাদ্রাসা হইছে। পর্চায় লেখা আছে এই জায়গাটি শুধুমাত্র ধর্মীয় কাজে ব্যবহৃত হবে। তাই হয়েছে, একটি মসজিদ ও মাদ্রাসা হয়েছে। আমার বড় ভাই সেলিম ওসমান সেখানে টাকাও দিয়েছেন। মাদ্রাসা ভালো রেজাল্টও করেছে। নারায়ণগঞ্জে এক মহিলা আছে। ওই মহিলা গিয়ে বললো মসজিদটাও ভাঙতে হবে, মাদ্রাসাটাও ভাঙতে হবে। মসজিদ, মাদ্রাসা উঠাইয়া কি করবেন? এখানে পার্ক করবেন। একটা গড়া জিনিস, ৩/৪ কোটি টাকা দিয়া মসজিদ হইছে। টাকাটা হচ্ছে জনগণের ট্যাক্সের টাকা। যদি এটা বুঝতাম আমার বিশাল রাজপ্রসাদ আছে, আমার একভরি স্বর্ণও নাই। মার্কেট করে কি করবেন, নিচের তলায় দোকান থাকবে, দোতলায় মসজিদ থাকবে। এরপর কি বলছে সেটা আমি একজনের কাছ থেকে শুনছি, নিজে শুনি নাই। কিন্তু আমি ধরমু। আমি বলছি, ৭০০ কোটি মানুষ একদিকে আছে, আমি একলা আছি একদিকে মসজিদ, আর মাদ্রাসায় খালি হাত দিয়া দেহাক। আমার জবাব যখন আমারে দিতে হবে, আমি দিমুনা!

শনিবার (২০ মার্চ ২০২১ইং) রাতে আলীরটেক ইউনিয়নের ডিক্রিরচর গ্রামে ওলামা পরিষদ আলীরটেক ইউনিয়নের উদ্যোগে ইসলামী মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

 

মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা আব্দুল সাত্তার সরকারের সভাপতিত্বে ইসলামী মহাসম্মেলনে মডেল মসজিদ প্রসঙ্গে শামীম ওসমান এমপি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ৫৬০টি মসজিদ একসাথে সারা বাংলাদেশে করতেছেন। নারায়ণগঞ্জে মন্ডলপাড়ায় একটি মডেল মসজিদ হওয়ার কথা। ৮৩ শতাংশ জায়গা আছে, কার? ওয়াকফর।সেখানে ৫৪৮ বছরের পুরোনো মসজিদ। ওই মহিলার কাছে ওয়াকফ প্রোপারটির এক ভদ্রলোক ফোন করলে বললেন সামনের জায়গাটা দেন,এটা আমি করবো। উনারা বললেন, বোন এখানে হাত দিয়েননা। এটা আল্লাহর সম্পত্তি। ভদ্রলোক বিদেশ চলে গেলেন, গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের টেন্ডার হয় নাই। রেলওয়ের অর্ধেক জায়গা আর ওয়াকফার অর্ধেক জায়গার মধ্যে তারা জোর করে ঢুকে পড়লো। আসলে সেখানে উদ্দেশ্য কি? ওই একই উদ্দেশ্য, সেখানে নাকি তিনি গাড়ির পার্কি বানাবেন! আসলে দোকান বানাইলেই তো লাভ আর লাভ। নারায়ণগঞ্জে এতো আলেম, আওয়াজ নাই। ভারতে কি হইলো তা নিয়া কতো কি? আউয়াল সাহেবের সব কথার সাথে আমি একমত না। কিন্তু তাকে আমি শ্রদ্ধা করি। আউয়াল সাহেবের কথা রেকর্ড করতে গিয়াই যদি এতো কথা কয়, ইদেশি-বিদেশি, ভাইস্যা আইছি নাকি! সেখানে একটা কথা বললো, মাদ্রাসা নাকি ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান! মাদ্রাসা চলে মানুষের দানে, সেখানে কোরআন শিক্ষা হয়।

 

শামীম ওসমান এমপি বলেন, করোনার সময় ফোন দিলে গরীব মানুষকে গালি দেয়। ওয়াকফ সম্পত্তি যেমন রেজিষ্ট্রি হয়না তেমনি দেবোত্তর সম্পত্তিও রেজিষ্ট্রি হয়না। ৭১ সালে কয়েক ধরণের মুক্তিযোদ্ধা ছিল। কে অরজিনাল, কে ভূয়া আমি দেখছি।এতো সম্পদ আসে কোত্থাইকা। অনেক কথাবার্তা বলে অনেকে। এমন কোন গালি নাই আমারে দেয়না। এবার আমি জবাব দেবো। জবাবটা ডকুমেন্ট দিয়ে দিবো।

হকার প্রসঙ্গ টেনে সাংসদ শামীম ওসমান বলেন, ভোটের সময় আরে বাপরে বাপ, নাটক কী? গরীব মানুষের সাথে জড়াইয়া ধইরা ছবি তোলে। তখন গরীবের ঘামের কোন গন্ধ নাই। ভোট শেষ, রাস্তার পারে হকার আছে, পিডাও ব্যাডাগো ধইরা। এমন জোরে মারো যাতে পিডের চামড়া উইঠ্যা যায়। আল্লাহ স্বাক্ষী আমি সেইদিন দেখলাম,পুলিশের দোষ দেই না। চাপ থাকে, রাস্তার পাশে হকার বসতে পারবেনা। আমি দেখতাছি, উপর থাইকা মারতাছে, ভাবলাম বাইর অমু (বের হবো)! আমি জানি বাইর অইলে (বের হলে) কি হইবো। আমি শামীম ওসমান রাস্তায় পাড়া দিলে শহরে কী হইবো আমি জানি। ১০হাজার লোক এক লাখ লোক হইতে সময় লাগবোনা। আমি সেইদিন বেঈমানি করছি, আমি যাই নাই। আন্দোলনডা করাইলো কমিউনিস্টরা। গরীবের জন্য জান দিয়া লায় (দিয়ে ফেলে) কমিউনিস্টরা। ওই মঞ্চেও থাকে, আবার এই মঞ্চেও থাকে। মইধ্যেখানে মাইর খাইলো হকাররা। আমার কাছে তখন অসহায় লাগছিল, তাই দুই রাকাত নফল নামাজ পড়ছি, আল্লাহর কাছে মাফ চাইছি। গরীব মানুষের হাঁকে সবকিছু ধ্বংস হয়ে যাবে।

 

শামীম ওসমান আরও বলেন, এই মাসটা শেষ হইতে দেন, আমি নামবো মাঠে ইনশাআল্লাহ। মসজিদ, মাদ্রাসায় হাত দিতে হইলে আমার বুকের উপর দিয়ে গিয়ে হাত দিতে হবে, এর আগে পারবেননা।

 

শামীম ওসমান এমপি বলেন, দেশটাকে নিয়ে অনেক খেলা হচ্ছে, ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র হচ্ছে। গভীর ষড়যন্ত্র। আপনারা ফাঁদে পা দিবেননা। যখন ২০০৬ সালের ডিসেম্বরে দেশে আসলাম সেদিন একদিনের নোটিশে লাখ লাখ মানুষ আসলো। আমার বাড়িতে গ্রেপ্তার ঠেকাতে টানা ১৫দিন হাজার হাজার মানুষ বাড়ি পাহারা দিল। সুতরাং মানুষের কাছেই আমি বলবো। এ মাসের পর আমি মাঠে নামবো। আমার জন্য শুধু দোয়া করবেন। হিন্দুদের জমি কিংবা আল্লাহর ঘর কিংবা জমিতে কোন হাত দেওয়া হলে সাবধান হুশিয়ার, মনে রাখবেন আমার বুকের উপর দিয়ে গিয়ে হাত দিতে হবে। নতুবা পারবেন না।

 

এসময় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, হবিগঞ্জের মাদরায়ে নূরে মদিনার মহাপরিচালক আল্লামা নুরুল ইসলাম ওলিপুরী, পীরজাদা মবিন উদ্দিন আহমেদ নওশীন মিয়া, মাওলানা আব্দুল খালেক শরিয়তপুরী, মাওলানা ফেরদাউসুর রহমান, মাওলানা হারুনুর রশিদ ,ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ শওকত আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম,আলীরটেক ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ জাকির হোসেন, গোগনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী আলহাজ্ব মোঃ ফজর আলী, আলহাজ্ব মোঃ জসিমউদ্দিন, সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ নাজির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আল মামুন, গোগনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবিএম আজহারুল ইসলাম, আলীরটেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুজ্জামান সরকার,প্রচার সম্পাদক মোঃ শহীদুল্লাহ্,ছাত্রলীগ নেতা শফিকুল ইসলাম বিপ্লব, শাহীন রাজু মেম্বার,মোঃ হানিফ প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020 Telegraphnews24.com
Theme Dwonload From telegraphnews24.Com