1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : test2246679 :
  3. [email protected] : test25777112 :
  4. [email protected] : test29576900 :
  5. [email protected] : test34936489 :
  6. [email protected] : test44134420 :
  7. [email protected] : test46751630 :
  8. [email protected] : test8373381 :
শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৫১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কাউন্সিলর পদে খান মাসুদকে সমর্থন দিলেন বাবুপাড়া পঞ্চায়েত কমিটি নাসিক ২২নং ওয়ার্ড এর তরুণ কাউন্সিলর পদপ্রার্থী খান মাসুদকে বিজয়ী করতে ঐক্যবদ্ধ র‍্যালীবাসী শ্রমিকরা ভাল থাকলেই দেশ ভাল থাকবে : পলাশ খেলাধুলা যুব সমাজ রক্ষা করার মূল হাতিয়ার : কাউন্সিলর দুলাল প্রধান আল- আরাফাহ’ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড বন্দর থানা শাখার দুস্তদের মাঝে খাদ্য ও স্বাস্থ্য সামগ্রী বিতরণ শ্রমিক নেতা পলাশের নির্দেশনায় নন্দলালপুরে ডাইং শ্রমিকদের সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধিতে সভা করলেন পিয়াস আহম্মেদ সোহেল   “নারায়ণগঞ্জ টেলিভিশন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন”এর আত্মপ্রকাশ,সভাপতি জুয়েল,সম্পাদক সৈকত আসছে বিরাট পরিবর্তন:নির্যাতিত-ত্যাগী হবেন প্রার্থী তারেক জিয়ার নির্দেশে বঙ্গবন্ধু কন্যাকে চিরতরে শেষ করার চেষ্টা করা হয়েছিল : এড. শহীদ বাদল নাসিক ২৪ নং ওয়ার্ডে বিট পুলিশিং কমিটির মতবিনিময় অনুষ্ঠিত

কারো প্ররোচনায় মহানগর আওয়ামীলীগ ভাঙ্গতে দেয়া হবে না : আনোয়ার হোসেন

টেলিগ্রাফ রিপোর্ট:
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৮ মার্চ, ২০২১
  • ৬৬ বার

 

নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন বলেছেন, বাংলাদেশ মানে বঙ্গবন্ধু আর বঙ্গবন্ধু মানে বাংলাদেশ। এই সত্যটি আজ সারা পৃথিবীতে প্রতিষ্ঠিত। একাত্তর সালে তারা যখন বাংলাদেশ চিনত না তখন তারা মুজিবকে চিনত। আমরা সেই দেশের নাগরিক। অত্যাচার, জুলুম ও অপ-রাজনীতির বিরুদ্ধে তিনি ছিলেন সব সময় সোচ্চার। যেখানে অন্যায় সেখানে প্রতিবাদ করতেন যেখানে অত্যাচার সেখানে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতেন এবং ন্যায়ের পяে সব সময় কথা বলতেন, সাহস নিয়ে কথা বলতেন। এই জিনিসটার আজকে আমাদের সমাজে খুব অভাব। আজকে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে সাধারণ কর্মীদের কাছে আমি এই জিনিসটাই আশা করবো। বঙ্গবন্ধু যেভাবে সবসময় অত্যাচারের বিরжদ্ধে সাহস নিয়ে কথা বলতেন, আমরা যদি তার জন্মদিনে শপথ নিতে তার প্রদর্শিত পথে চলার তাহলেই তার জন্মশতবার্ষিকী স্বার্থক হবে। আমরা চাই বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে প্রতিষ্ঠা করতে। তার আদর্শ ছিল দেশপ্রেম, অন্যায়-অত্যাচারের বিরжদ্ধে রжখে দাড়ানো। আর সে কারনেই বার বার তিনি কারা নির্যাতিত হয়েছেন।

 

বুধবার ১৭ই মার্চ বাদ আসর নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১ তম জন্মবাষিকী আলোচনা সভা, দোয়া ও কেক কাটা অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

 

নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট খোকন সাহা সঞ্চালয়নায় সভায় উপস্থিত ছিলেন, সহ সভাপতি শেখ হায়দার আলী পুতুল, নুরুল ইসলাম চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এস এম আহসান হাবিব, জি এম আরমান, সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মাহমুদা মালা, জি এম আরাফাত, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. আতিকুজ্জামান সোহেল, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রশিদ, বন ও পরিবেশ বিয়ষক সম্পাদক আক্তারুজ্জামান, বন্দর থানা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবেদ হোসেন, কার্যকরি সদস্য সাখাওয়াত হোসেন সুমন, আবু হেনা, শামীম খা, চঞ্চল, জেলা যুবলীগ নেতা তাহের উদ্দিন আহম্মেদ সানি, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সেলিম হাসান দিনার, মোশাররফ হোসেন জনি প্রমুখ।

 

আনোয়ার আরো বলেন, আজকে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে আমাদের সে শপথটা নেই। অপ-রাজনীতি, অন্যায় ও অসত্যর বিরжদ্ধে যদি আমরা ঐক্যবদ্ধ হতে পারি তাহলেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হবে। আজকে আমরা যারা রাজনীতি করি, সাহস করে সত্য কথা বলতে পারি না। এটি আমাদের সবচেয়ে বড় অপরাধ।

 

ছাত্রজীবনে বঙ্গবন্ধুর সাথে দেখা করার সৌভাগ্য হয়েছিল তিনি বলেছিলেন, মানুষের জন্য রাজনীতি করো এবং ভালমত লেখাপড়া করো। আমাদের দেশে ভাল মানুষের বড় অভাব। তিনি বলেছিলেন সোনার বাংলাদেশ গড়তে সোনার মানুষ দরকার। সেইজন্য আমদের ভাল মেধা সম্পন্ন ছাত্র তৈরি করতে হবে। আমরা ৭৫তে যখন দেখলাম সারা বাংলাদেশ বাকশালে ভরে গেছে, এক নেতা এক দেশ বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ। এমন অবস্থাতে বঙ্গবন্ধু পড়েছিলেন যে তিনি সে অবস্থা থেকে আর বের হতে পারেননি। আমরা তখন ভেবে ছিলাম সারা বাংলাদেশে এত বাকশাল, না জানি বাংলাদেশের কী হয়। আমাদের ধারনাই সত্য হয়েছিল। বঙ্গবন্ধুর লাশ যখন ৩২ নম্বরের বাড়িতে পড়ে রইল ওই মুজিবকোটধারীরা যে যার যার মত পালিয়ে গেল। বঙ্গবন্ধু হত্যার কোন প্রতিবাদ হল না। আমরা সেদিন রাস্তায় নেমেছিলাম, প্রতিবাদ করেছিলাম। সেই প্রতিবাদ করতে গিয়ে দীর্ঘদিন কারাভোগ করেছিলাম তবে একটা কথা সত্য, নারায়ণগঞ্জকে আমরা কলঙ্কমুক্ত করতে পেরেছিলাম। কারন সারা বাংলাদেশে প্রতিবাদ না হলেও আমরা নারায়ণগঞ্জে প্রতিবাদ করেছিলাম। এটাই আমাদের পাওয়া।

 

আজকে আওয়ামী লীগ তিন দফায় яমতায় আছে। আজ সারা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে ভরে গেছে। বিএনপি, জামাত সবাই আজকে আওয়ামী লীগ আজকে স্বাধীনতা বিরোধীরাও প্রতিষ্ঠিত। এই আবস্থা থেকে যদি পরিত্রান না পাওয়া যায় বঙ্গবন্ধুর শত সংগ্রাম আজকে বৃথা হয়ে যাবে। শেখ হাসিনা চায় সৎ নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠা করতে, তিনি বলেছেন আমার ভাড়াটিয়া লোক দরকার নেই আওয়ামী লীগে। আমাদের নীতিবান নেতাকর্মী থেকেই নতুন নেতৃত্ব তৈরি করতে হবে। নারায়ণগঞ্জের আওয়ামী লীগে জিকে শামীমের মত একটা লোক ঢুকে পড়ার চক্রান্ত তৈরি হয়েছিল। এই জিকে শামীম আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ব্যবহার করে টাকা পয়সা কামিয়ে অত্যান্ত ধনাঢ্য ব্যাক্তিতে পরিনত হয়েছিল। আরেক জায়গায় দুই ভাই হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট করে ফেলেছিল। আওয়ামী লীগ সরকার সেদিকে নজর রেখেছে এবং তাদের বিরжদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে। আজকে জামাত বিএনপি পরিবারের লোক আওয়ামী লীগে ঢোকার জন্য চেষ্টা করছে। ওই সমস্ত লোক যেন আওয়ামী লীগে ঢুকতে না পারে সে ব্যাপারে সবাই সাবধান থাকবেন। ওই মাতাল, মাদক ব্যবসায়ী, ঝুট ব্যাবসায়ী যারা আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি নষ্ট করে তারা যেন আওয়ামী লীগে ঢুকতে না পারে সে ব্যাপারে আমাদের সোচ্চার হতে হবে। ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সে দায়িত্ব নিতে হবে৷ আমরা যদি আজকে চোখ কান খোলা না রাখি তাহলে আবারও পচাত্তরের মত অবস্থা হয়ে যেতে পারে। কারন সারা বাংলাদেশেই এখন আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগে ঢোকার জন্য আমাদেরকে ল্যাং মেরে তারা সামনে আসার চেষ্টা করছে। এই ব্যাপারে বঙ্গবন্ধুর এই জন্মশতবর্ষে আমাদের সকলকে সোচ্চার হতে হবে।

 

জাতির পিতা একদিনে হয় নি। সত্যের জন্য লড়াই করতে গিয়ে অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে গিয়ে শত জেল জুলুম, অত্যাচার নির্যাতন সহ্য করে আজকে তিনি জাতির পিতা হয়েছেন। তিনি সবসময় সাধারণ মানুষের দাবী নিয়ে আন্দোলন করতেন। তিনি সাহস নিয়ে সত্য কথা বলতেন। আমরা তা করতে পারি না। আমি বিভাজিত রাজনীতিতে বিশ্বাস করি না। আমি ঐক্যবদ্ধ রাজনীতি করতে চাই। সেই লя্যে সকল মতের মানুষ নিয়ে ঐক্যবদ্ধ ভাবে আমাদের দল তৈরি করতে হবে। সুসংহত সংগঠন ছাড়া দাবী দাওয়া প্রতিষ্ঠা করা যায় না। আমরাই যদি ত্যাগীদের মূল্যায়ন করতে না পারি, শেখ হাসিনা কীভাবে মূল্যায়ন করবেন। তাই আমি বলবো ত্যাগীদের মূল্যায়ন করতে যা যা করা দরকার আমরা করবো।

 

মহানগর আওয়ামী লীগে খোকন সাহা আমার চেয়ে অনেক ছোট। আমি যখন তোলারাম কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি সে তখন একটা ওয়ার্ড ছাত্রলীগের কর্মী। তারপরও তার সাথে আমার কোন রাজনৈতিক দ্বন্দ নেই। আমি ঐক্যবদ্ধ হতে চাই। ভুল-ত্রুটি থাকাটাি স্বাভাবিক। আমরা সবাই মানুষ, ফেরেশতা নই। কোন সমস্যা থাকলে আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করবো। কিন্তু কারও প্ররোচনায় পড়ে আমরা এই সংগঠনকে яতিগ্রস্ত করবো না। এই সংগঠনের জন্য আমার অনেক শ্রম রয়েছে, খোকন সাহারও রয়েছে। তিনি ছোট থেকে ছাত্র রাজনীতি করত। বয়সে ছোট হলেও নেতৃত্বে সে অনেক সাবলীল। তাই দীর্ঘদিন যাবৎ আমরা শহর আওয়ামী লীগকে নেতৃত্ব দিচ্ছি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020 Telegraphnews24.com
Theme Dwonload From telegraphnews24.Com