1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : test2246679 :
  3. [email protected] : test25777112 :
  4. [email protected] : test29576900 :
  5. [email protected] : test34936489 :
  6. [email protected] : test44134420 :
  7. [email protected] : test46751630 :
  8. [email protected] : test8373381 :
শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:২৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কাউন্সিলর পদে খান মাসুদকে সমর্থন দিলেন বাবুপাড়া পঞ্চায়েত কমিটি নাসিক ২২নং ওয়ার্ড এর তরুণ কাউন্সিলর পদপ্রার্থী খান মাসুদকে বিজয়ী করতে ঐক্যবদ্ধ র‍্যালীবাসী শ্রমিকরা ভাল থাকলেই দেশ ভাল থাকবে : পলাশ খেলাধুলা যুব সমাজ রক্ষা করার মূল হাতিয়ার : কাউন্সিলর দুলাল প্রধান আল- আরাফাহ’ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড বন্দর থানা শাখার দুস্তদের মাঝে খাদ্য ও স্বাস্থ্য সামগ্রী বিতরণ শ্রমিক নেতা পলাশের নির্দেশনায় নন্দলালপুরে ডাইং শ্রমিকদের সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধিতে সভা করলেন পিয়াস আহম্মেদ সোহেল   “নারায়ণগঞ্জ টেলিভিশন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন”এর আত্মপ্রকাশ,সভাপতি জুয়েল,সম্পাদক সৈকত আসছে বিরাট পরিবর্তন:নির্যাতিত-ত্যাগী হবেন প্রার্থী তারেক জিয়ার নির্দেশে বঙ্গবন্ধু কন্যাকে চিরতরে শেষ করার চেষ্টা করা হয়েছিল : এড. শহীদ বাদল নাসিক ২৪ নং ওয়ার্ডে বিট পুলিশিং কমিটির মতবিনিময় অনুষ্ঠিত

নারায়ণগঞ্জে হকারদের বিরুদ্ধে পুলিশের মামলা : আসাদসহ আসামি ২৫০

টেলিগ্রাফ রিপোর্ট:
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১০ মার্চ, ২০২১
  • ৮৭ বার

নারায়ণগঞ্জে পুলিশের উপর হামলার অভিযোগ এনে গ্রেফতারকৃত ৩ জনসহ আরো ২৭ জনের নাম উল্লেখ করে ২৫০ জনকে আসামি করে সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।আসামিদের বিরুদ্ধে সরকারি কাজে বাধা, পুলিশের উপর হামলা, হত্যার উদ্দেশ্যে আঘাত, সড়ক অবরোধ করে যানজট সৃষ্টি সহ নানা অভিযোগ আনা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত হকার নেতা আসাদুল ইসলাম, কালু গাজী ও মানিক দেওয়ান এই তিনজনের কাছ থেকে ৫টি বাঁশের লাঠি, ২১টি ইটের টুকরো, কাঠে ডাসা ১১টি, লোহার রড ২টা উদ্ধার করা হয়েছে বলে দাবি পুলিশের। বুধবার (১০ মার্চ) সকালে এসআই নুরুজ্জামান বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

 

মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, আগের দিন মঙ্গলবারের ঘটনায় বাদী এসআই নুরুজ্জামান সহ ওসি শাহ জামান, এসআই মো. রুবেল, এএসআই শিশির আহম্মেদ হামলাকারীদের আঘাতে জখম প্রাপ্ত হয়েছে।

 

প্রসঙ্গত, নারায়ণগঞ্জ শহরের ফুটপাতে বসার দাবীতে ধারাবাহিক আন্দোলন করা হকাররা নিজেদের বিক্রিত মালামাল আগুনে পুড়ে অভিনব প্রতিবাদ জানায়। এসময় পুলিশ বিনাউস্কানিতে পুলিশ হকারদের উপর লাঠিচার্জ করে।  হকাররা ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিত্তুরে পুলিশের উপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও তিনটি যাত্রীবাহী বাস, একটি প্রাইভেটকার, ৬টি ব্যাটারি চালিত অটো রিকশা ভাঙচুর করে। ওই সময়ে বাস থেকে ভয়ে লাফিয়ে নামতে গিয়ে একজন নারীসহ ৫ জন আহত ও হকারদের ইটপাটকেলে অন্তত ১০জন সদস্য আহত হয়েছে দাবি করেছে পুলিশ।

 

অপরদিকে,হকারদের দাবি পুলিশের লাঠিচার্জে তাদের নেতা আসাদুজ্জামান সহ অন্তত আরো ১৫ জন আহত হয়েছে। ৯ মার্চ বিকেল ৫টা হতে সন্ধ্যা পৌনে ৭টা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ শহরের বঙ্গবন্ধু সড়ক, সলিমুল্লাহ সড়ক ও ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে হকারদের বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

জানা গেছে, হকারদের ফুটপাতে বসার দাবিতে গত কয়েকদনি ধরেই বিক্ষোভ করে আসছে হকারদের একটি অংশ। মঙ্গলবার বিকেল ৫টায় শহরে আবারো বিক্ষোভ করে। চাষাঢ়ায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে থেকে মিছিলটি বের হয়।
সরেজমিন দেখা যায়, মিছিলটি চাষাঢ়ায় গোল চত্ত্বর এলাকাতে পৌছালে পুলিশ বাধা দেয়। ওই সময়ে পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে মিছিল আগাতে চাইলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে ও হকার নেতা আসাদকে আটক করে।
এ ঘটনার জের ধরে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে হকাররা । তারা বঙ্গবন্ধু সড়কে মডার্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সামনে বঙ্গবন্ধু সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়।  সুগন্ধ রেস্টুরেন্টের সামনে কাপড় ও চৌকি ফেলে সেখানে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে গ্রীন্ডলেজ ব্যাংকের মোড়েও একই পন্থায় আগুন ধরিয়ে দেয় হকাররা।

 

তখন সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ জামানের নেতৃত্বে পুলিশ অ্যাকশনে যাওয়ার চেষ্টা করলে হকারদের আরেকটি গ্রীন্ডলেজ ব্যাংকের সামনে গিয়ে অবস্থান করে সেখানেও আগুন ধরিয়ে দেয় সড়কে।

 

ওই সময়ে আল্লাহ ভরসা, বাধন ও বন্ধন পরিবহনের তিনটি বাস লক্ষ্য করে হকাররা ইটপাটকেল ছুড়তে থাকে। আতংকিত হয়ে যাত্রীরা দ্রুত নামতে গিয়ে এক নারী সহ ৫ জন আহত হয়। পরে বাসগুলো দ্রুত সেখান থেকে সরে যায় ও আহতরা বিভিন্ন হাসপাতালে যান। তাদের পরিচয় জানা যায়নি।

একসময় পুলিশকে লক্ষ্য করে হকাররা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। পুলিশও পাল্টা লাঠিচার্জ করে। প্রায় এক ঘণ্টা পর সন্ধ্যা ৬টায় হকাররা বঙ্গবন্ধু সড়ক থেকে সরে গেলে যান চলাচল শুরু হয়। একই সময়ে হকারদের আরেকটি গ্রুপ নবাব সলিমুল্লাহ সড়কে হকার্স মার্কেটের সামনেও সড়ক বন্ধ করে বিক্ষোভ করে। সেখানেও পুলিশ গিয়ে তাদের সরিয়ে দেয়।

 

নগরীর দুটি সড়ক থেকে যখন হকারদের সরিয়ে দেওয়া হয় তখন তারা ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে গিয়ে সড়কে আগুন ধরিয়ে দিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। সেখানে পুলিশ গিয়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দিলে পৌন ৭টায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক ঘটে।

 

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী বলেন, হকারদের একটি গ্রুপ মিছিল বের করে জনস্বার্থে ব্যাঘাত ঘটায়। তখন পুলিশ তাদের বাধা দেয়। তখন হকাররা সড়ক অবরোধ করলে পুলিশ তাদের সরিয়ে দিতে চাইলে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়ে। এতে পুলিশের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। তাদের পরিচয় পরে জানানো হবে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

এর আগে ৭ মার্চ রোববার বিকেলে শহরের চাষাঢ়া এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে ২নং রেলগেইট হয়ে গলাচিপা মোড় পর্যন্ত বিক্ষোভ মিছিল শেষে সমাবেশ করেন। সেদিনও হকাররা শহরে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020 Telegraphnews24.com
Theme Dwonload From telegraphnews24.Com