1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : annagilliam :
  3. [email protected] : pimgiuseppe :
  4. [email protected] : test2246679 :
  5. [email protected] : test25777112 :
  6. [email protected] : test29576900 :
  7. [email protected] : test34936489 :
  8. [email protected] : test44134420 :
  9. [email protected] : test46751630 :
  10. [email protected] : test8373381 :
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৪১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দারিদ্র্য বিমোচনে দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোর কাজ করা উচিত : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফুলেল শ্রদ্ধায় সিক্ত হলেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও নাট্যজন মাহমুদ সাজ্জাদ সারাদেশে সাম্প্রদায়িক হামলা, নির্যাতন ও হত্যার প্রতিবাদে এবং দ্রুত বিচার দাবিতে মহিলা পরিষদের মানববন্ধন  আবারো নৌ-পুলিশ ও ট্রলার বাল্কহেড শ্রমিক ইউনিয়নের যৌথ উদ্যোগে নিখোঁজ বাল্কহেড উদ্ধার  এনায়েতনগর ৬ নং ওয়ার্ড মেম্বার প্রার্থী সমাজ সেবক রফিকুল ইসলাম রফিক এর উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত সোনারগাঁয়ের ৮টি ইউপি’র নির্বাচন: আওয়ামী লীগের নতুন ৪ ও ৪টিতে পুরাতন মুখ আইভীর মিথ্যাচারে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের ক্ষোভ আইভীর সম্প্রীতির কর্মসূচী সুপার ফ্লপ,আসেনি মূলধারার কেউই,হারিয়েছেন গণমানুষের সমর্থন! দলীয় নেতারা চুনোপুটি, রাঘব বোয়াল আইভী,উচ্চাবিলাসী আর বেঁফাস কথাবার্তা ! বাড়ির সীমানা বিরোধ: রূপগঞ্জে ব্যাংকারের বাড়িতে হামলা-ভাংচুর

বিদায় ২০২০খ্রি:, করোনা চেনালো মানুষ আসলে কে এবং কারা ?

টেলিগ্রাফ রিপোর্ট:
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৩১ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৪৭২ বার

‘মানুষ মানুষের জন্যে, জীবন জীবনের জন্যে, একটু সহানুভূতি কি, মানুষ পেতে পারে না; ও বন্ধু’ – কিংবদন্তী সংগীতশিল্পী ভূপেন হাজারিকার সেই কালজয়ী গান  আজও মানুষের বিবেক নাড়া দেয়। আজও মানুষকে ভাবায়। মানুষের চেতনাকে শাণিত করে; জাগিয়ে তোলে।

তাঁরই প্রমান আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে গেলো বিদায়ী বছর ২০২০খ্রি:। করোনা ভাইরাস সারা পৃথিবীতে আতঙ্কের নাম হলেও নারায়ণগঞ্জে ছিল গানের সেই কথা গুলোর মতোই। মানুষ হয়ে মানুষের পাশে দাঁড়াতে শিখিয়েছে। চিনিয়েছে আসল মানুষ কে এবং কারা ?

সেই মানুষ গুলোর তালিকায় সবার আগে যার নাম এসে যায় তাঁরা হলেন, সালমা ওসমান লিপি,মাকসুদুল আলম খোরশেদ, রোজিনা আক্তার, আয়শা আক্তার দিনা,সাইফুদ্দিন আহম্মেদ দুলাল প্রধান ও খান মাসুদ। এছাড়াও আরও অনেকে রয়েছেন, যারা নিজ নিজ অবস্থানে থেকে হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন মানবতার সেবায়।  ভয় না পেয়ে মোকাবেলা করেছেন করোনা। ইতিহাসে তাঁদের নাম স্বর্ণাক্ষরে “করোনা যোদ্ধা” হিসেবে লিবিবদ্ধ থাকবে।

 

-:সালমা ওসমান লিপি:-

করোনা কালে কখনও খাদ্য নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের স্ত্রী সালমা ওসমান লিপি। আবার কখনওবা করোনা আক্রান্ত পরিবারের জন্য বাড়িয়ে দিয়েছেন সহযোগীতার হাত। সংকট কালিন সময়ে করোনায় আক্রান্তদের ব্যবস্থা করেছেন চিকিৎসার। দিয়েছেন হাসপাতালে বেড ও অত্যাধুনিক অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়েছেন। অর্থ দিয়ে সহযোগীতা করেছেন হাজারও মানুষকে। যখনই খবর পেয়েছেন, কিংবা গণমাধ্যমে-স্যোশাল মিডিয়াতে কোন অসহায় মানুষের সংবাদ প্রকাশ হয়েছে, লিপি ওসমান নিজেই ছুটে গিয়েছেন। কিংবা পাঠিয়েছেন তার প্রতিনিধি। দিয়েছেন সাহস, করেছেন সার্বিক সহযোগিতা ।

 

-:মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ:-

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার ওরফে খোরশেদ আলোচনায় আসেন করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের লাশ দাফন ও সৎকার করে। করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের মরদেহ দাফনে স্বজনেরা কেউ এগিয়ে না এলেও তিনি ও তাঁর স্বেচ্ছাসেবক দল ১৪৫টি লাশ দাফন ও সৎকার করেছে।

মাকসুদুল বলেন, ‘যখন দেখলাম করোনায় মারা যাওয়া মরদেহগুলোর পাশে কেউ নেই, তখন মনে হলো আমারও তো এই দশা হতে পারে। “মৃতদেহের স্বজন আমরা” স্লোগান নিয়ে লাশ দাফন শুরু করি।’ মাকসুদুল বলেন, প্লাজমা সংগ্রহ, অক্সিজেন ও অ্যাম্বুলেন্স সেবা ছাড়াও করোনা-পরবর্তী পুনর্বাসনের জন্য সেলাই মেশিন, হুইলচেয়ার, সাইকেল বিতরণের কাজও করছেন।

 

-:রোজিনা আক্তার:-

শুরুতে কেউ মারা গেলে লাশ গোসল-দাফন তো দূরের কথা পরিবারের সদস্যরাও ছুঁয়ে দেখতো না। চিরচেনা মানুষ করোনায় আক্রান্ত না হয়েও মারা গেলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা মরদেহ পরে থাকতো। অনেক জনপ্রতিনিধি যখন চুপটি করে বাসায় বসে ‘ইয়া নফসি-ইয়া নফসি’ করেছেন। সেই বিভীষিকাময় সময়ে কিছু মানুষ সাহস করে এগিয়ে আসেন। রোজিনা আক্তার তাদের মধ্যে অন্যতম। এ পর্যন্ত ৪৮ জন নারীকে গোসল করিয়েছেন তিনি।

ঝুঁকি জেনেও কেন এমন কাজে এগিয়ে এলেন, এমন প্রশ্নের জবাবে রোজিনা আক্তার জানান, স্বামী মারা গেছে। সন্তানরা বিয়ে করে সংসারী হয়েছে। পরিবারে আমার দায়িত্ব যতখানি আমি মনে করি একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে মানুষের প্রতি আরও বেশি দরদ থাকা দরকার। এই বোধোদয় থেকেই করোনা ভয়কে উপেক্ষা করে মানবসেবায় এগিয়ে এসেছি।

 

-:আয়শা আক্তার দিনা:-

করোনা ভাইরাসের কারণে বিপর্যস্ত মানবতার মাঝে একের পর এক মানবতার উদাহারণ সৃষ্টি করে যাচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনা। করোনা ভাইরাসের কারণে যখন কেউ কারও সহযোগিতায় এগিয়ে আসছেন না ঠিক তখনই আয়শা আক্তার দিনা বিভিন্ন কর্মসূচির পাশাপাশি গর্ভবর্তী মায়েদের নানাভাবে সহযোগিতা করে গিয়েছেন।

তবে, যার কাছ থেকে সবচেয়ে বেশি প্রত্যাশা করেছিল নগরবাসী। সেই নগর মেয়র সেলিনা হায়াত আইভী থেকে পুরো করোনার সময়ে প্রত্যাশিত সেবা না পাওয়ার অভিযোগ রয়েছে। যেখানে বিভিন্ন কাউন্সিলরা ছুটে গেছেন মানুষের আপদ-বিপদে, সেখানে মেয়রকে তেমন একটা জনসম্মুখে পাওয়া যায়নি। তবে, সিটি করপোরেশন থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া ত্রাণ তিনি কাউন্সিলরদের মাধ্যমে বিতরণ করেছেন।

 

-:সাইফুদ্দিন আহম্মেদ দুলাল প্রধান:-

নারায়ণগঞ্জের প্রথম করোনা রোগীর সন্ধান মেলে নাসিক তেইস নং ওয়ার্ডের নবীগঞ্জ রসুলবাগ এলাকায়। প্রথম লকডাউনের ঘোষনা এই ওয়ার্ড থেকেই। কাউন্সিলর হিসেবে গুরু দায়িত্ব পড়ে তাঁর উপর,বুকে প্রচন্ড সাহস নিয়ে মাঠে নামেন তিনি। প্রথমে বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ,হাত ধোঁয়ার ব্যবস্থা,হ্যান্ডস্যানিটাইজার বিতরণ কর্মসূচি। একই সাথে লকডাউনে আটকে পড়া আশিটি পরিবারের নিত্যদিনের বাজার,শিশুদের জন্য দুধ,ওষুধসহ যাবতীয় বিষয়দীর ব্যবস্থা করেন নিজের জমানো টাকা থেকে। করোনা মোকাবেলায় রাত দিন পরিশ্রম করেছেন তিনি ও তাঁর সহকর্মীরা। একপর্যায়ে দুই সহকর্মী নিয়ে নিজেও অসুস্থ হয়ে পড়েন। তারপরও থেমে যাননি তিনি। মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক ও কাউন্সিলর সাইফুদ্দিন আহম্মেদ দুলাল প্রধান থেমে থাকার মানুষ নন। মানুষের দু:থ দর্দশায় নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন।আর এসব তিনি শিখেছেন তাঁর মরহুম পিতা সাবেক কমিশনার আব্দুল বারেক সরদারের কাছ থেকে। বাবাকে দেখেছেন কীভাবে মানুষের সেবা করতে হয়।

 

-:খান মাসুদ:-

বন্দরের এক আলোচিত ব্যক্তি থান মাসুদ। থানা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও বর্তমানে যুবলীগ নেতা থান মাসুদ করোনা কালীন সময়ে অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন। যেথানে বন্দরের বাঘা বাঘা নেতারা নিজেদের লুকিয়ে রেখেছেন ,সেখানে খান মাসুদ করোনাকে ভয় না পেয়ে তার সহকর্মীদের নিয়ে মাঠে নামেন। অসহায় দিনমজুর পরিবারগুলার বাড়ি বাড়ি গিয়ে পৌছে দিয়েছেন খাবার। বিশেষ করে গোটা বন্দর চালচালকারী বিভিন্ন যানবাহনের চালক,হেলপার ও নৌকা মাঝিদের খাদ্য সামগ্রী ও নগদ টাকা দিয়ে সাহয্যের হাত বাড়িয়েছেন। স্থানীয় কাউন্সিলর ছিলেন অনেকটা পর্দার আড়ালে,ঠিক সেসময় থান মাসুদের অবদার মানুষ সারা জীবন মনে রাখবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020 Telegraphnews24.com
Theme Dwonload From telegraphnews24.Com